৬ মার্চের মধ্যে ভোটকর্মীদের টিকাকরণ শেষ করার নির্দেশ, তবে কী ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা মার্চেই ?

0
111

অমিত শর্মা, নয়া দিল্লি : কবে ভোট ঘোষণা করা হবে তা এখনও নিশ্চিত না হলেও ভোটের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। একদিকে যেমন কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানোর তোরজোর শুরু হয়ে গিয়েছে, অন্যদিকে রাজ্যের ভোটকর্মীদের টিকাকরণের প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জেলা শাসকদের জানানো হয়েছে ৬ মার্চের মধ্যে ভোটকর্মীদের টিকাকরণ শেষ করতে হবে। কেন্দ্রীয় বাহিনী রাজ্যে এলে তাদেরও টিকাকরণ করা হবে।

এগিয়ে আসছে ভোটের দিন। ধাপে ধাপে সেদিকে এগোচ্ছে নির্বাচন কমিশন। ইতিমধ্যেই জেলা শাসকদের নির্দেশিকা জারি করে রাজ্যের ভোটকর্মীদের ৬ মার্চের মধ্যে টিকাকরণ শেষ করার কথা বলা হয়েছে। শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মুখ্যসচিব জেলা শাসকদের নির্দেশ দিয়েছেন। ২৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকাকরণ েশষ করতে হবে। আর ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে করোনা যোদ্ধাদের টিকা করণ শেষ করতে হবে।

ভোটের কাজে প্রচুর ব্যবহার হয় গাড়ি। কাজেই নির্বাচনের কাজে যেসব গাড়ি ব্যবহার করা হবে তাদের কথা মাথায় রেখে গাড়ির চালকদেরও টিকাকরণ করতে হবে বলে নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে। শুধু চালকদের টিকা দিলেই হবে না খালাসিদেরও টিকা দিতে হবে। শিক্ষক,অশিক্ষক কর্মী, সরকারি কর্মচারী সহ রাজ্যের প্রায় ৯ লক্ষ জনের নাম নথিভুক্ত হয়েছে টিকাকরণের জন্য। তারমধ্যে পুলিশ কর্মী, স্বাস্থ্যকর্মী,স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী, পুরসভার কর্মীেদরও টিকাকরণ হয়েছে।

ভোটের ডিউটি দেওয়া হয় শিক্ষক-অধ্যাপকদেরও। সেকথা মাথায় রেখে রাজ্যের সব সরকারি কর্মীদের টিকাকরণের জন্য নাম নথিভুক্ত করতে বলা হয়েছে। ধাপে ধাপে স্কুল কলেজের শিক্ষক এবং অধ্যাপকদেরও টিকাকরণ করা হবে বলে জানিেয়ছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার রাজ্যে আসছে ১২কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। প্রথমেই তারা যাবেন বীরভূমে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের ধাপে ধাপে রাজ্যে আনা হবে। রাজ্যে আসার পর কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের টিকাকরণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে ভোটে কোনও রকম ঝুঁকি নিতে চায় না কমিশন। সেকারণেই টিকাকরণ করিয়েই এই সকলকে ভোটের কাজে লাগানো হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here