১৬০ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসছে বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় ‘হারিকেন ইদা’ ! রেড অ্যালার্ট উপকূলে

0
467

পিঙ্কি শর্মা, নয়াদিল্লি : আবারও এক সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসছে উপকূল অভিমুখে। ১৬ বছর আগে হারিকেন আছড়ে পড়ার স্মৃতি এখনও টাটকা। এবার সই স্মৃতি উসকে প্রবল বেগে ধেয়ে আসছে ‘হারিকেন ইদা’। আবহবিদরা আশঙ্কা করছে ১৬ বছর আগের মতোই ক্ষতির মুখে পড়তে চলেছে আমেরিকায় গালফ উপকূল। সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর।

১৬ বছর আগে আমেরিকার গালফ উপকূলের নিউ অরলিয়ানে আছড়ে পড়েছিল বিধ্বংসী হারিকেন। আবারও সেই একই পথে এগিয়ে চলছে ‘হারিকেন ইদা’। আবহাওয়া দফতরের তরফে উপকূল থেকে সবাইকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। প্রশাসন তৎপরতার সঙ্গে উপকূলবর্তী এলাকা থেকে সরিয়ে নিতে শুরু করছে সাধারণ মানুষকে।

মার্কিন আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, হারিকেনের শক্তি বাড়িয়ে ধেয়ে চলেছে আমেরিকার উপকূলের দিকে। ১৬০ কিলোমিটার ঘণ্টায় ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়। আবহিবদরা জানিয়েছেন, আছড়ে পড়ার সময় সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ১৪০ মাইল ঘণ্টা বা ২২৫ কিলোমিটারের ঊর্ধে। রবিবারই তা আছড়ে পড়তে পারে গালফ উপকূলের নিউ অরলিয়ানে।

আমেরিকান ন্যাশানাল হারিকেন সেন্টারের পক্ষ থেকে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। প্রশাসনকে তৈরি থাকতে বলা হয়েছে এই হারিকেনের তাণ্ডবলীলার পর উদ্ধারকার্যের জন্য। মার্কিন প্রশাসন আগে থেকেই সমস্ত ব্যবস্থা রেখে দিয়েছে। উপকূল ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছে। তৈরি রাখা হয়োছে সেনা ও বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরকে।

হারিকেন ইদার আগমন বার্তার পর লুইসিনার গর্ভর্নক জন বেল এডওয়ার্ডস জানিয়েছেন, ১৮৫০ সালের পর থেকে সম্ভবত এমন ঝড় আগে আছড়ে পড়েনি। ঝড়ের গতিবেগ উত্তরোত্তর বাড়ছে। হারিকেন ইদা নিয়ে সবাইকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। এই প্রবল ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার আগেই বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানিয়েছেন, ওই অঞ্চলে শতাধিক নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। বিপর্যস্ত এলাকায় ত্রাণ পাঠানোর জন্য খাবার, জল ও বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রস্তুতিও নিয়েছে আমেরিকা। এলাকার মানুষকে আশ্রয় দিতে ত্রাণ শিবির তৈরি করা হয়েছে। কোভিড বিধি মেনেই ত্রাণ শিবিরে স্থান দেওয়া হচ্ছে মানুষকে।

ভয়ঙ্কর হারিকেন ইদার হামায় সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠতে পারে বলেও সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। সমুদ্রের জলস্তর ১৫ ফুট পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। ফলে উপকূলবর্তী এলাকায় প্লাবিত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সেই কারণে লুসিয়ানায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here