শীতলকুচি কাণ্ডে সিআইডির চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট, বুথ লক্ষ্য করে চলে গুলি! সোমবার ঘটনাস্থলে যাচ্ছে CID

0
648

তীর্থঙ্কর মুখার্জি, কলকাতা : ২০২১-এর বিধানসভা কোচবিহারে ভোট শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই শিরোনামে চলে আসে শীতলকুচির জোরপাটকির ১২৬ নম্বর বুথ। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের গুলিতে ৪ জন নিহত হন। এই ঘটনার তদন্তে নেমেই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট সামনে আনল সিআইডি।

রাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থার প্রাথমিক অনুমান, ভোটের দিন জোরপাটকির ১২৬ নম্বর বুথ লক্ষ্য করেই গুলি চলেছিল। বুথের ভিতর দরজা ভেদ করে গুলি ঢুকে যায় বলে জানানো হচ্ছে সিআইডি রিপোর্টে। এমনকি গুলি লাগে ব্ল্যাকবোর্ডেও। এদিকে বাইরে অশান্তি হওয়া সত্ত্বেও কীভাবে ভিতরে গুলি গেল, তা খতিয়ে দেখতে মরিয়া ফরেন্সিকের ব্যালেস্টিক টিম।

বুথের ভিতরে গুলি কে চালালো, কোথা থেকে চালানো হয়েছিল, কোন আগ্নেয়াস্ত্র থেকে চালানো হয়েছিল, সেই বিষয়গুলিই এবার তদন্ত করে দেখতে চাইছে সিআইডি। সূত্রের খবর, সোমবার ঘটনাস্থলে যাবেন সিআইডি আধিকারিকেরা। কেন বুথের দিকে তাক করে গুলি চালানো হল, তা খতিয়ে দেখবেন রাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থার ফরেন্সিক বিভাগের ব্যালেস্টিক বিশেষজ্ঞরা। এদিকে সিআইডি রিপোর্ট সামনে আসতেই ফের চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

তদন্তের শুরুতেই ঘটনার দিন বুথে থাকা এক পুলিশকর্মী ও এক ভোটকর্মীর বয়ান রেকর্ড করেছেন সিআইডি আধিকারিকরা। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে মাথাভাঙা থানার তদন্তকারী অফিসার, অফিসার ইনচার্জ বিশ্বাশ্রয় সরকার, কুইক রেসপন্স টিমের আধিকারিক ও সেক্টর অফিসারকেও। একইসাথে ঘটনার দিন আরটি মোবাইল অফিসার হিসেবে দায়িত্বে থাকা এসআই গোবিন্দ মণ্ডলের ভূমিকাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে।

এদিকে ঘটনার তদন্তভার হাতে পাওয়ার পরেই সিআইডি-র ডিআইজি কল্যাণ মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠন করা হয় বলে জানা যায়। সেই তদন্ত ইতিমধ্যেই সিটের তত্ত্বাবধানে জোর কদমে চলছে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের থেকে শুরু করে পুলিশ-প্রশাসনের কর্তাদেরও পড়তে হচ্ছে তদন্তের মুখে। ঘটনার দিন সত্যিই গ্রামবাসীদের তরফে অশান্তিতে কোনও প্ররোচনা দেওয়া হয়েছিল কি না প্রাশসানের কর্মকর্তাদের থেকে তাও জানার চেষ্টা চালাচ্ছেন সিআইডি-র তদন্তকারী আধিকারিকেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here