লকডাউন চালিয়ে যেতে হবে ১৭ মে পরও, মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকের পর মত প্রধানমন্ত্রীর ! 

0
158
লকডাউন চালিয়ে যেতে হবে ১৭ মে পরও, মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকের পর মত প্রধানমন্ত্রীর ! 
BAHRS GLOBAL NEWS, 12 MAY 2020
তীর্থঙ্কর মুখার্জি, নয়াদিল্লি : সোমবার মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে প্রধানমন্ত্রীর টানা ছয় ঘন্টা হাইভোল্টেজ বৈঠকের চলার প্রধানমন্ত্রীর মোদীর মত লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো উচিত৷ অন্তত দেশে এখন যা পরিস্থিতি তাতে ১৭ মে পরও চালাতে হবে লকডাউন৷ করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের পথে হাঁটতে চান তিনি, এমনই বক্তব্য তাঁর ৷ বৈঠকে প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের থেকে আলাদা আলাদা করে বক্তব্য শোনেন তিনি৷ সেখানেই লকডাউন বাড়ানো এবং ধীরে ধীরে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রগুলোর পক্ষে এক এক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন মত তুলে ধরেন৷
অন্যদিকে রাজ্যের পরিস্থিতি অনুযায়ী কবে লকডাউন উঠবে সেটা ঠিক করুন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা৷ কারণ নিজ নিজ রাজ্যের ক্ষেত্রে তাঁরাই এই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন খুব ভালভাবে৷ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে এমনই আর্জি জানান বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা৷ রাজ্যে করোনা সংক্রান্ত নানা সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বাধীনতা থাক মুখ্যমন্ত্রীদের হাতে, এমনই সুর ছিল পঞ্জাব, কেরল, পশ্চিমবঙ্গ, ছত্তিশগড় ও ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীদের গলায়৷
এরই পাশাপাশি তাঁর রাজ্যে আপাতত বন্ধ থাক ট্রেন যাত্রা, প্রধানমন্ত্রী মোদির কাছে এই অনুরোধ জানিয়েছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামী৷ সূত্রের খবর রাজ্যের পরিস্থিতি যা তাতে পালানিস্বামী চান না কোনওভাবে সেখানে বাইরে থেকে মানুষ আসুন৷ এতে সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে এমনই আশঙ্কা৷ ৩১ মে পর্যন্ত সমস্ত রকম ট্রেন ও বিমান পরিষেবা বন্ধের পক্ষেই সওয়াল করেছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী৷ পাশাপাশি কেন্দ্রের থেকে ২৫হাজার কোটি টাকার অর্থ সাহায্য চেয়েছেন তিনি৷
তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর মতো একইভাবে এই মুহূর্তে তাঁদের রাজ্যেও ট্রেন ও বিমান পরিষেবা চান না তেলেঙ্গানা, অন্ধ্র প্রদেশ ও ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রীরাও৷
মোদী এদিন মুখ্যমন্ত্রীদের জানান, রেলের চলাচল অর্থনৈতিক দিককে চাঙ্গা করার একটি নামান্তর। আর সেই কারণেই রেল চলাচলকে সচল করা হয়েছে। তবে সমস্ত রুটে রেল চলাচল করবে না বলে জানান মোদী।
বিদেশ থেকে আসা ভারতীয়দের আবশ্যিক কোয়ারেন্টাইন প্রতিটি রাজ্যকে নিশ্চিত করতে বলেছেন মোদী। পাশাপাশি, রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিদ্যুৎ পরিষেবার পরিকাঠামো গড়ে তোলা, ব্যাঙ্কিং এ ঋমের সহজলভ্যতার মতো বিষয়ে মোদী জোর দেওয়ার কথা বলেন।
মোদী এদিন সমস্ত রাজ্যকে নির্দেশ দিয়ে বলেন, ১৫ মের মধ্যে সমস্ত রাজ্য যেন জানিয়ে দেয় যে লকডাউনের অন্তবর্তী সময় তারা কে কীভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে চায়। কীভাবে ধীরে ধীরে লকডাউন তোলা নিয়ে রাজ্যগুলি ব্লুপ্রিন্ট তৈরি করছে তাও জানতে চান মোদী। পাশাপাশি . চিকিৎসা পরিকাঠামো আরও মজবুত করতে বলেন প্রধানমন্ত্রী।
মোদী এদিন বলেন, ‘লকডাউন তুলে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের দেখতে হবে ভ্যাকসিনের বিষয়টিও। এছাড়া একমাত্র সোশ্যাল ডিসটেন্সিংই এই সমস্যার সমাধানের মূল হাতিয়ার। ‘ তিনি বলেন, গোটা বিশ্ব এখন দুটি ভাগে বিভক্ত। একটি প্রাক-করোনা একটি করোনার পরবর্তী অংশ । তিনি বলেন, এই ‘সত্যি’কে সঙ্গে নিয়েই সকলকে চলতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here