মমতার চালে মাত বিজেপি , রাজ্যে এবার তিন পুলিশ ব্যাটেলিয়ন ! পাহাড় থেকে জঙ্গলমহল

0
323

মমতার চালে মাত বিজেপি , রাজ্যে এবার তিন পুলিশ ব্যাটেলিয়ন ! পাহাড় থেকে জঙ্গলমহল

তীর্থঙ্কর মুখার্জি, কলকাতা : বিহার নির্বাচনে জয়ের পরেই বাংলা দখল করতে ঝাঁপিয়ে পড়তে চাইবে বিজেপি। তবে তারই মধ্যে থেকে নিজের হাতে থাকা অস্ত্র ব্যবহার করতে শুরু করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের সমস্যাগুলির মধ্যে বেকার সমস্যাও অন্যতম। সঙ্গে রয়েছে বিভিন্ন জনজাতির সমস্যা। এবার সবগুলিকে একসঙ্গে করে ভোটের আগেই জবাব দিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।
এদিন নবান্নে ক্যাবিনেট বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে জানান, রাজ্যে এবার আলাদা করে তিনটি পুলিশ ব্যাটেলিয়ন গঠন করা হবে। সেই তিনটি ব্যাটেলিয়ন হলে কোচবিহারের জন্য নারায়নী ব্যাটেলিয়ন, দার্জিলিং আর কালিম্পং-এর জন্য গোর্খা ব্যাটেলিয়ন এবং জঙ্গলমহলের জেলাগুলির জন্য জঙ্গলমহল ব্যাটেলিয়ন।
তিনটি ব্যাটেলিয়ন হাজার করে মোট তিন হাজার যুবকের নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করা হবে জানুয়ারির মধ্যে, জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, নারায়নী ব্যাটেলিয়ন রাজবংশী সম্প্রদায়ের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। এছাড়াও নারায়নী সেনা ছিল কোচবিহারের রাজার। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, পাহাড়ের জন্য আলাদা করে ইএফআর ব্যাটেলিয়ন আগে থেকেই রয়েছে।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ব্রিটিশরা ইএফআর বাহিনী গড়ে তুলেছিল। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বাহিনীর নাম বদল করা হয়েছিল। অন্যদিকে জঙ্গলমহল ব্যাটেলিয়ন তৈরি করা প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, জঙ্গলমহলের যুবকদের জন্য এর আগে হোমগার্ড কিংবা পুলিশ বাহিনীতে স্পেশাল নিয়োগ প্রক্রিয়া চালানো হয়েছিল। এবার তাদের জন্য আলাদা বাহিনী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।
নারায়নী সেনা নামে বাহিনী তৈরি করেছিল গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশন। নারায়নী সেনার নামটি কোচবিহারের রাজ পরিবারের সঙ্গে যুক্ত থাকায় তা অনেকেরই মনের সঙ্গে মিল রয়েছে। বিজেপি কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার পরে ২০১৬তে এই সেনাকে বিএসএফ প্রশিক্ষণ দিয়েছিল বলে অভিযোগ করেছিল নবান্ন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে এনিয়ে প্রতিবাদও জানিয়েছিল নবান্ন।
যদিওবিএসএফ-এর তরফে জানানো হয়েছিল, তারা কোনও বিচ্ছিন্নতাবাদী বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয় না। স্কুলের ছেলেমেয়েদের সাবধান-বিশ্রাম শেখানো হয়েছিল। প্রসঙ্গত এই ঘটনার মাস কয়েক আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে চিঠি লিখে কোচ-রাজবংশীদের জন্য পৃথ সেনা রেজিমেন্ট তৈরির দাবি করেছিলেন তৎকালীন দার্জিলিং-এর সাংসদ সুরেন্দ্র সিং আলুওয়ালিয়া।
গত ডিসেম্বরে সংসদে নারায়নী সেনা গঠনের দাবিতে সরব হয়েছিলেন কোচবিহারের সাংদ নিশিথ প্রামাণিক। সংসদে তিনি বলেছিলেন, ১৯৪৯-এর ২৮ অগাস্ট ভারত ভুক্তির চুক্তি অনুযায়ী, নারায়নী সেনাকে ভারতীয় সেনায় সামিলের উল্লেখ রয়েছে। সেই চুক্তি অনুযায়ী নারায়নী সেনা পুনর্গঠন করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি। বিজেপি সাংসদ আরও বলেছিলেন, তা করা হলে কোচবিহার তথা রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষজন নতুন করে সম্মানিত বোধ করবেন।
মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানিয়েছেন, আগামী ২ মাসের মধ্যে ১৬ হাজার শিক্ষক পদ পূরণ করা হবে। তিনি বলেছেন, ইতিমধ্যেই ২০ হাজার চাকুরিপ্রার্থী শিক্ষক নিয়োগের টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে রয়েছেন। এছাড়াও আরও অনেকেই টেট পরীক্ষা দিতে চান। পরবর্তী সময়ে অফলাইনে তাদের জন্য পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here