কাবুল জুড়ে একের পর এক বিস্ফোরণ, কালো ধোঁয়াতে ঢাকল আকাশ ! এখনও পর্যন্ত মৃত ১৩

0
318

অমিত শর্মা, নয়াদিল্লি : মার্কিন সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে এই মুহূর্তে কাবুল এয়ারপোর্ট। তালিবানদের হাত থেকে বাঁচতে বিমানবন্দরের বাইরে ভিড় জমাচ্ছেন বহু মানুষ। যদিও বারবার তাঁদের ছত্রভঙ্গ করতে কখনও শূন্যে গুলি চালাচ্ছে তালিবান জঙ্গিরা। আবার কখনও সরাসরি বুকে গুলি চালাচ্ছে জঙ্গিরা। আর এই অবস্থার মধ্যেই বিমানবন্দরে বাইরে প্রবল বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছে। একটি নয়, একের পর এক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গিয়েছে। এমনটাই জানাচ্ছে পেন্টাগন।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। ঘটনার পর পুরো এয়ারপোর্ট চত্বর কড়া নিরাপত্তার মোড়কে মুড়ে ফেলা হয়েছে। জানা যাচ্ছে, বিমানবন্দরের ভিতরে সবাই সুরক্ষিত রয়েছে। যদিও টুইটারে বেশ কয়েকজন দাবি করেছেন, এই বিস্ফোরণের ঘটনাতে তিনজন মার্কিন সেনা গুরুতর আহত হয়েছেন।

তবে বিস্ফোরণের পর টুইটারে একের পর এক ভিডিও সামনে আসতে শুরু করেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে বিস্ফোরণের পর কালো ধোঁয়াতে ঢেকে গিয়েছে আকাশ। শুধু তাই নয়, বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই ছিল যে চারপাশ পুরো কেঁপে যায়। তবে এই ঘটনার পর এখনও হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

তবে বিভিন্ন সূত্র দাবি করছে যে প্রবল এই বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও পেন্টাগনের তরফে বিস্ফোরণের খবরের সত্যতা স্বীকার করে নিলেও ঠিক কতজনের মৃত্যু হয়েছে সেই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু জানাতে পারেনি তাঁরা।

যদিও টুইটারে যে ছবি আসছে তাতে দেখা যাচ্ছে একের পর এক আহত আফগানদের হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কারোর রক্তে ভিজে গিয়েছে জামা তো আবার কারোর মাথা ফেটে রক্ত বেরিয়ে আসছে। কার্যত ভয়ঙ্কর ছবি। তবে এখনও পর্যন্ত বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেনি তালিবানরা। তবে আইএসআইএস জঙ্গিরা এই আত্মঘাতী হামলা ঘটিয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

বিস্ফোরণের পর যে ভিডিও সামনে এসেছে তাতে গুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে। যদিও কে বা কারা গুলি চালাচ্ছে তা স্পষ্ট হচ্ছে না। তবে পেন্টাগন সূত্রে খবর, কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পূর্ব গেটের সামনে ঘটে বিস্ফোরণ। অন্য বিস্ফোরণটি কাবুল এয়ারপোর্টের সামনে থাকা একটি হোটেলে হয়েছে বলে খবর। উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন আগেই ওই হোটেল থেকে বেশ কয়েকজন মার্কিন নাগরিককে উদ্ধার করা হহয়।

মার্কিন ফোর্সের অনুমান, তালিবান এবং মার্কিন বাহিনীকে টার্গেট করতেই এই বিস্ফিরন ঘটনানো হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় কাবুলে। নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে কাবুল বিমানবন্দরে যাওয়া ইটালির বিমান লক্ষ্য করে গুলি চালায় তালিবান জঙ্গিরা। যদিও পাল্টা মার্কিন সেনার তরফেও গুলি চালানো হয়েছে। দুপক্ষের গোলাগুলিতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি।

ক্রমশ ভয়াবহ হচ্ছে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি। ইতিমধ্যে গোটা আফগানিস্তান তালিবানদের দখলে। একের পর এক ফতোয়া। যদিও তালিবানদের শান্তির বার্তা দেওয়া হলেও এখনও তেমন কিচু ঘটেনি। বরং একের পর এক ফতোয়া, গুলির শব্দে আতঙ্কিত সে দেশের মানুষ। সে দেশের মানুষদের দাব, কখনই তালিবানদের বিশ্বাস করা যায় না। যদিও ধীরে ধীরে সেটাই সত্যি হতে চলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here