করোনা লড়াইয়ে এবার কলকাতা পুলিশের বিশেষ ঢাল হতে চলেছে এই বিশেষ মাস্ক !

0
302

করোনা লড়াইয়ে এবার কলকাতা পুলিশের বিশেষ ঢাল হতে চলেছে এই বিশেষ মাস্ক !

BAHRS GLOBAL NEWS, 15 APR 2020
তীর্থঙ্কর মুখার্জি, কলকাতা : করোনা মোকাবিলায় দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। আর এই লকডাউনকে সফল করতে পুলিশ লকডাউনের প্রথম দিন থেকেই লড়াইটা লড়তে হচ্ছে সামনে থেকে। এই মারন ভাইরাস অদৃশ্য তাই লড়াইটা বেশ কঠিন। এই পরিস্তিতিতে করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ থেকে নিজেদের সুরক্ষার জন্য তৈরি করেছে এক বিশেষ মাস্ক। এবার পুলিশ নিজেদের উদ্যোগেই বানিয়ে ফেলল ফেস সিলড মাস্ক। আর তাঁদের তৈরি এই বিশেষ মাস্ক কার্যকর হবে বলেই মনে করছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরাও সহমত প্রকাশ করেছে।
ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মীদের কাছে পৌঁছে গেছে সেই মাস্ক। কয়েকদিনের মধ্যেই অন্য পুলিশ কর্মীদের কাছেও পৌঁছে যাবে বলে জানা গিয়েছে লালবাজার সূত্রে। উল্লেখ্য কয়েকদিন আগেই পাঞ্জাব পুলিশের ১৭ জন পুলিশকর্মী সহ বিচারক কে জেতে হয় কোয়ারেন্টাইনে। কারন কয়েকদিন আগেই পাঞ্জাব পুলিশ ২৪ বছর বয়েসি এক বাইক চোরকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশ হেফাজতে থাকাকালীন ওই অভিযুক্তের করোনা উপসর্গ দেখা দেয় এবং টেস্ট রিপোর্ট তাঁর পজিটিভ আসে। গোটা দেশের পুলিশ মহলকে এই ঘটনা কিছুটা হলেও আতঙ্কিত করেছে।
এই সেই বিশেষ ফেস সিলড মাস্ক
গোটা রাজ্য সহ কলকাতা শহরে নাকা চেকিংয়ের জন্য প্রতিদিন পথে থাকতে হচ্ছে কলকাতা পুলিশকে। লকডাউনে যাতে প্রয়োজনে ব্যাতিত না বেড় হন সেই দিকটির পাশাপাশি পাকরড়াও করতে হচ্ছে অন্য অপরাধীদের। এমত অবস্থায় পুলিশ কর্মীরা মাস্ক ব্যবহারের সাথে দূরত্ব বজায় রেখেই কাজ করছে। কিন্তু ঝুঁকি তো থেকেই যাচ্ছে অপরাধী ধরতে গিয়ে সরকারি সেই দির্দেশকা মেনে দূরত্ব বজায় রাখলে অপররাধী ধরবে কি করে পুলিশ। এই বিষয়টি ভাবায় বড়বাজার থানার OC কে। এরপরেই তিনি বানিয়ে ফেললেন ফুল ফেস সিলড মাস্ক। যা চোখ, নাক একটা প্লাস্টিকের আবরণ।
যা করোনা ভাইরাস সরাসরি চোখ,নাক বা মুখে ঢোকার ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে দেয়। বিদেশে অনেক হাসপাতাল কর্মীরা PPE পরেও এধরনের মাস্ক ব্যবহার করছেন। পুলিশ সূত্রের খবর, বড় বাজার থানার OC এই মাস্ক তৈরি করার পর ব্যবহারের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমোদন চান। এরপর বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলে লালবাজার বুঝেছে , এটি অত্যন্ত কার্যকারী হবে। এরপরেই শুরু হয় সেটি ব্যাপক হারে তৈরির কাজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here