করোনা দেশে আসার জন্য আসল কার ভূমিকা রয়েছে জানিয়ে দিল রাষ্ট্র মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা ! দেখুন

0
365

করোনা দেশে আসার জন্য আসল কার ভূমিকা রয়েছে জানিয়ে দিল রাষ্ট্র মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা ! দেখুন

BAHRS GLOBAL NEWS, 18 MAY 2020
মতাহার হোসেন ,সৌভিক, বাঁকুড়া : এদিন কতোল পুরের বিধায়ক তথা রাষ্ট্র মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর ফেসবুক পেজে এসে করোনার আবির্ভাবের বিষয়টি নিয়ে তুলে ধরেন। কার্যত নাম না করলেও ট্রাম্পের দেশে সফর কেই উল্লেখ করে তিনি জানান, আজকে ভারতবর্ষের যে পরিস্থিতি,করোনা ভাইরাস যেভাবে ছড়িয়ে পড়েছে তার ছায়া পৃথিবীর সব দেশেই আমরা লক্ষ করতে পারছি,ভারতবর্ষ ও তার প্রত্যেকটা রাজ্যে অতিমহামারী হিসাবে ছড়িয়ে পড়েছে ও ভারতবর্ষের বেশ কয়েক হাজার মানুষ তার জন্য আক্রান্তও হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, স্বাভাবিক ভাবে আমি আজ দেখতেপাচ্ছি এমন এক কঠিন পরিস্থিতি,যে পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে বহু মানুষকে আজ একটা বহু সংগ্রামের মধ্যে যে বাঁচার চেস্টা সেটা প্রত্যক্ষ করতে পারছি। দূর দূরান্ত থেকে শ্রমিকেরা যেভাবে পায়ে হেটে নিজেদের জীবনকে বিপন্ন করে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছে,তাতে আজ প্রত্যেকটা মানুষ দেখে স্তব্ধ হয়ে যাচ্ছে। ঈশ্বর তাদের কি এমন শক্তি প্রদান করছে যে কিভাবে এই মানুষগুলোই অতিকষ্টের মধ্যে দিয়ে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করেছে।

"করোনা পায়ে হেঁটে ভারতে আসেনি,করোনা বিমানে এসেছে"।

Posted by Shyamal Santra on Sunday, May 17, 2020

আমাদের একটাই বক্তব্য যে মানুসগগুলো এভাবে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছে তাদের জন্য কিন্তু করোনা ভারতে প্রবেশ করেনাই,বার বার একটা কোথাই আমি সকলের কাছে বলতে চাই “করোনা পায়ে হেটে আসেনি,করোনা এসেছে বিমানে চেপে,বিদেশ থেকে আমদানি করাহয়েছে। দেশে যখন করোনা ধিরে ধিরে থাবা বসাচ্ছে বাংলায় মুখ্যমন্ত্রীর স্বাস্থ্য ব্যবস্থা স্তম্ভের মতো দাড়িয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।
করোনার সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরবার সংখ্যাটাও অনেক। এই মারণ রোগটাকে,আটকাতে বাংলা সহ দেশের আন্তর্জাতিক এয়ার্পোর্টে গুলি বন্ধ করার জন্য বার বার আবেদন করেছিলেন আমাদের সকলের প্রিয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বাড়ে বাড়ে সেই প্রথম থেকে বলেছিলেন আন্তর্জাতিক উড়ান বন্ধ করা হোক,যদি সেটা হতো তাহলে সেই ভয়ংকর ভাইরাস প্রবেশ করতে পারতোনা ।
উল্লেখ্য পশ্চিমবঙ্গের রাষ্ট্রমন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা অধ্যাপক হওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ছাত্রছাত্রীদের জন্য ক্লাস শুরু করেছেন। লকডাউনে স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় উপকৃত হচ্ছেন অনেক পড়ুয়া।
তাঁর বিধান সভায় খুবই জনপ্রীয় বিধায়ক তিনি এলাকার মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে তাঁর । এই লকডাউনে তাঁর বিধান সভা এলাকার কর্মহীন মানুষদের জন্য প্রতিদিনই খাদ্য সামগ্রী তাঁদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছেন খোঁজ নিচ্ছেন নিজেই কেমন আছেন তাঁরা ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here