এইমস এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে হিন্দুর দেহ গেল কবরে, মুসলিমের দেহ হল দাহ !

0
168

এইমস এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে হিন্দুর দেহ গেল কবরে, মুসলিমের দেহ হল দাহ !

BAHRS GLOBAL NEWS, 08 JUL 2020
নিজস্ব সংবাদদাতা, নয়া দিল্লি : কোভিড ১৯ রোগীদের মৃত্যুর পর প্লাস্টিকে মুড়া দেহ তুলে দেওয়া হয়৷ এইমস এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে হিন্দুর দেহ গেল কবরে, মুসলিমের দেহ হল দাহ। এদিন এইমস এর ট্রমা কেয়ার সেন্টার থেকে খবর দেওয়া হয় নাসরিন (নাম পরিবর্তন) -র পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছিল।
করোনায় আক্রান্ত হয়ে নাসরিনের মৃত্যু হয়েছে ৷ এরপরেই তাঁর পরিবারের সদস্য সকাল ৮ টার নাগাদ নিজের পরিবারের সদস্যের মৃতদেহ নিতে গেলে তাদের জানানো হয় দেহ কবরস্থ করার জন্য তৈরি করা হচ্ছে৷ এরপর নাসরিনের ভাই ট্রমা কেয়ার সেন্টারের কাছে বার বার আবেদন করেন তাঁর বোনের মুখ দেখতে চেয়ে।
তাঁকে জানানো হয় তিনি একমাত্র সমাধি ক্ষেত্রে গিয়েই মুখ দেখতে পারবেন ৷ কবর দেওয়ার ঠিক আগে নাসরিনের তিন সন্তান তাঁদের মায়ের মুখ দেখার দাবি করেন৷ সে সময় যাঁরা উপস্থিত ছিলেন তাঁরা বলেন মৃতদেহের মুখ দেখার জন্য তাঁদের কাছে ৫০০ টাকা চাওয়া হয়।
নাসরিনের দাদা জানিয়েছেন টাকা দেওয়ার পর তাঁদের মৃতদেহের মুখ থেকে প্লাস্টিক সরিয়ে দিতেই চমকে ওঠেন তাঁরা৷ এরপরেই নাসরিনের ভাই জানিয়েছিল, এটা আমাদের বোনের দেহ ছিল না ৷ এটা আরতির (নাম পরিবর্তিত) দেহ ছিল ৷ সে একজন হিন্দু৷ এরপরেই ভুল সিকার করে পরিবারকে জানায় একটা ভুল হয়েছে তবে তাদের এক ঘণ্টার মধ্যে সঠিক দেহ দিয়ে দেওয়া হবে৷
কবর স্থানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা নাসরিনের পরিবার অপেক্ষা করার পর তাঁরা ট্রমা সেন্টার পৌঁছলে তারা জানতে পারেন নাসরিনের দেহ অন্য হিন্দু পরিবারটি পুড়িয়ে দিয়েছে ৷ অপরদিকে পাঞ্জাবীবাগের শশ্মানে তাঁরা জানতে পারেন যাঁর দেহটি দাহ করা হয়েছে তিনি তাঁদের মেয়ে নন৷ ঘটনাটি তদন্তকমিটি তৈরি করা হয়েছে ৷ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ একজন কর্মচারীকে বরখাস্ত করা হয়েছে অন্যজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here